ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার…

0 87

বাংলাদেশের সাইবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। সম্প্রতি মাইক্রোসফট প্রকাশিত ‘সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স রিপোর্ট’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। দেশের বেশির ভাগ কম্পিউটার ব্যবহারকারী প্রকৃত উইন্ডোজ সফটওয়্যার ব্যবহার না করায় সাইবার আক্রমণের শিকার হওয়ার ঝুঁকি বেশি। ব্যক্তিগত তথ্য বা কম্পিউটারের সুরক্ষায় কোন কোম্পানির অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করবেন এবং ব্যয় কেমন হবে, তা নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকেন। বিশ্বের জনপ্রিয় অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার সরবরাহকারী প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের বিনামূল্যের সংস্করণ রয়েছে। সাইবার নিরাপত্তায় এসব অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। কয়েকটি বিনামূল্যের অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার নিয়েই আজকে আমাদের আলোচনা।

ক্যাসপারস্কিবাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি ব্যবহূত অ্যান্টিভাইরাস ক্যাসপারস্কি। চাইলে যে কেউ ক্যাসপারস্কির ওয়েবসাইট থেকে বিনামূল্যের সংস্করণ ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। বিনামূল্যের হলেও সংস্করণটি দ্বারা যে কোনো ম্যালওয়ার থেকে সুরক্ষা পাওয়া যাবে। চলতি বছর বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট নিরাপত্তা নিশ্চিতে ক্যাসপারস্কি তাদের অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারের নতুন একটি বিনামূল্যের সংস্করণ উন্মোচন করার ঘোষণা দিয়েছে। গ্রাহকরা অর্থ দিয়ে ক্যাসপারস্কির যে সংস্করণ কিনবে তার চেয়ে বিনামূল্যের সংস্করণ কিছুটা কম কার্যকর। তবে তা প্রাথমিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।

এভিজিদেশের কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের মধ্যে এভিজি অ্যান্টিভাইরাসের বিনামূল্যের সংস্করণ অনেকেরই পছন্দের। এতে প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাসের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ ফিচার এবং সম্পূর্ণ অ্যান্টিস্পাইওয়্যার টুল আছে। অ্যাভাস্ট অ্যান্টিভাইরাস গত বছর এভিজিকে অধিগ্রহণের পর এতে নতুন কিছু ফিচার যোগ করেছে, যেগুলো ম্যালওয়ার ব্লকিংয়ে খুব ভালো কাজ করে। বিনামূল্যের এ নিরাপত্তা সফটওয়্যারে ওয়েব সিকিউরিটি প্লাগইন ফিচার রয়েছে। এটি উইন্ডোজ ১০, ৮ ও ৭ এবং উইন্ডোজ ভিস্তা ও এক্সপিতে কাজ করবে।

অ্যাভিরা: চলতি বছরের জন্য অ্যাভিরা অ্যান্টিভাইরাসের নতুন সংস্করণে দারুণ ম্যালওয়্যার প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে। এর মাধ্যমে ভাইরাস, ট্রোজান, ওয়ার্ম, ম্যালওয়্যার, স্পাইওয়্যার, অ্যাডওয়্যার খুব ভালোভাবেই শনাক্ত করা যায়। সাধারণত বিভিন্ন অ্যান্টিভাইরাস পিসিতে ইনস্টলের পর রিবুট করতে হলেও এতে তার দরকার হয় না। অ্যাভিরা অ্যান্টিভাইরাসের বিনামূল্যের সংস্করণ ম্যালওয়্যার ব্লকিংয়ে কার্যকর হলেও, ফাইল স্ক্যানিং করতে বেশ সময় নেয় এটি। সফটওয়্যারটি কেবল ফায়ারফক্স ও ক্রোম ব্রাউজারেই সুরক্ষা দিতে সক্ষম।

বিটডিফেন্ডারবিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় অ্যান্টিভাইরাস বিটডিফেন্ডার বছরের শুরুতে তাদের বিনামূল্যের সংস্করণ উন্মোচন করেছিল। যে কোনো ধরনের ফিশিং থেকে সুরক্ষায় এর তুলনা হয় না। এর বিটডিফেন্ডার অ্যান্টিভাইরাসের পেইড এবং বিনামূল্যের সংস্করণের মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য নেই। বলা হয়, সাইবার ফিশিং থেকে বাঁচতে এটিই সবচেয়ে কার্যকর অ্যান্টিভাইরাস। পিসিতে এ সফটওয়্যার সহজে ও দ্রুত ইনস্টল হয়।

কমোডোকমোডো সিকিউরিটি সলিউশনের কমোডো অ্যান্টিভাইরাস বিশ্বব্যাপী বেশ জনপ্রিয়। এর বিনামূল্যের সংস্করণ বিভিন্ন থ্রেট থেকে সুরক্ষা দেবে। নিরাপত্তার স্বার্থে ব্যবহারকারীর পিসিতে অপরিচিত ফাইল স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্লক করবে কমোডো অ্যান্টিভাইরাস। এটি উইন্ডোজ ১০, ৮, ৭ এবং উইন্ডোজ ভিস্তাতে কাজ করবে।

পান্ডাবাংলাদেশের পিসি ব্যবহারকারীরা চাইলে পান্ডা অ্যান্টিভাইরাসের বিনামূল্যের সংস্করণ ব্যবহার করতে পারবেন। এ অ্যান্টিভাইরাস সফওয়্যারটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, ইউএসবি ড্রাইভের মাধ্যমে আসা ম্যালওয়্যার থেকে সুরক্ষা দিতে অসাধারণ কাজ করে। তবে ম্যালওয়্যার ব্লকিংয়ে খুব একটা ভালো ফলাফল দেবে না। এক্ষেত্রে পান্ডাকে গড়পড়তা মানের অ্যান্টিভাইরাস হিসেবে আখ্যা দেয়া যায়।

অ্যাভাস্টবাংলাদেশের কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের মাঝে জনপ্রিয় একটি অ্যান্টিভাইরাস অ্যাভাস্ট। অনেকেই বিনামূল্যের অ্যান্টিভাইরাসের মধ্যে অ্যাভাস্টকে সেরা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে থাকেন। এতে প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামের সবগুলো ফিচার থাকায় ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় পিসি, ই-মেইল ও ইন্সট্যান্ট মেসেজিংয়ের ক্ষেত্রেও নিরাপত্তা দেবে। ১৯৮৮ সাল থেকে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার উন্নয়ন ও সরবরাহ করছে অ্যাভাস্ট। প্রতিষ্ঠানটি গত বছর জনপ্রিয় অ্যান্টিভাইরাস এভিজি কিনে নিয়েছে। তবে দুই প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা পণ্য আলাদা নামেই বাজারজাত করা হচ্ছে।

মন্তব্য
Loading...