কতটা শক্তিশালী আইফোন টেন?

0 44

চিকন বেজেলের ওএলইডি স্ক্রিনের আইফোন টেন নিয়ে বিশ্বব্যাপী হুলস্থুল পড়ে গেছে। বিশ্বজুড়ে আইফোন টেন কেনার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়েছে আইফোন ভক্তরা। তবে হ্যান্ডসেটে যত বড় স্ক্রিন তা ভেঙে যাওয়া বা ফাঁটল ধরে যাওয়ার ঝুঁকিও তত বেশি। আর আইফোন টেনের মতো দামী স্মার্টফোনের স্ক্রিন সারাই করাও ব্যয়বহুল হবে।

যারা আইফোন টেন কেনার জন্য মুখিয়ে আছেন তারা হয়ত ভাবছেন হাত থেকে পড়ে গেলে তখন কি হবে? সম্প্রতি আইফোন টেন কতটা মজবুত তা খতিয়ে দেখেছে কিছু জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল। ড্রপ টেস্টের মাধ্যমে আইফোন টেন কতটা মজবুত তা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর এ পরীক্ষার সম্পূর্ণ অংশটি ভিডিও ধারণ করা হয়েছে।

এভরিথিং অ্যাপল প্রো, টেকর‌্যাক্সের মতো ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে দেখা গেছে আইফোন টেনকে বিভিন্ন উচ্চতা থেকে মাটিতে ফেলে এটি কতটা মজবুত তা পরীক্ষা করা হয়েছে। এভরিথিং অ্যাপল প্রো চ্যানেলটির ভিডিওতে আইফোন টেনকে আইফোন ৮ স্মার্টফোনের সাথে প্রতিযোগিতা করতে দেখা গেছে। ভিডিওতে দুটি স্মার্টফোনকে বিভিন্ন উচ্চতা থেকে সামনে, পিছনে করে মাটিতে ফেলা হয়েছে। সামনে-পিছনে করে বিভিন্ন উচ্চতা থেকে ফেললেও আইফোন টেনের ডিসপ্লেতে কোনো ধরনের ফাঁটল ধরেনি। এমনকি স্ক্রিনের অংশটিকে তাক মাটিতে ফেললেও আইফোন টেনের ডিসপ্লেতে কোনো ফাঁটল ধরেনি। এমনকি আইফোন ৮ স্মার্টফোনের ডিসপ্লেতেও কোনো ফাঁটল ধরেনি।

ফোনবাফের পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা গেছে, আইফোন ৮ প্লাস স্মার্টফোনের পিছনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিন্তু আইফোন টেনের কোনো ক্ষতি হয়নি। আইফোন টেনের পিছনে থাকা রিয়ার ক্যামেরা বাম্প পিছনের দিকটিকে ক্ষতির হাত থেকে বাঁচিয়েছে বলে সবাই ধারণা করছে। আর স্ক্রিনকে তাক করে মাটিতে ফেললে দেখা গেছে আইফোন টেন থেকে আইফোন ৮ প্লাসের ডিসপ্লে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্মার্টফোনগুলোকে মুখ বরাবর এবং কোমর বরাবর উচ্চতা থেকে মাটিতে ফেলা হয়েছে। ভিডিওগুলোতে পাওয়া তথ্য ঠিক থাকলে অ্যাপল সত্যিই প্রশংসার দাবিদার।

আইফোন টেনে ২৪৩৬*১১২৫ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ৫.৮ ইঞ্চি ডিসপ্লে আছে। হ্যান্ডসেটের পিক্সেল ঘনত্ব ৪৫৮ পিপিআই। অ্যাপল এর নাম দিয়েছে সুপার রেটিনা ডিসপ্লে। এইচডিআর ডিসপ্লেটি ডলবি ভিশন এবং এইচডিআর১০ সমর্থন করে।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

মন্তব্য
Loading...