ওমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম এর নারী দিবস উদযাপন

0 25

গতকাল (মার্চ ১৭, ২০১৮) নারী দিবস উপলক্ষে ওমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম (ডব্লিউ ই) বনানীটি-স্টল এ নারী দিবস উদযাপন এবং লোগো উন্মোচন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের –আয়োজন করে। ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) ডব্লিউ ই কে সহযোগিতা করে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সভাপতি শমী কায়সার, রাজিব আহমেদ ই-ক্যাব পরিচালক,  ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স, এবং হোসনে আরা বেগম এনডিসি ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব), বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক নাছিমা আক্তার। ওমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম (ডব্লিউ ই) এর লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিভিন্ন কর্মকাণ্ড সবার সামনে তুলে ধরেন।

এরপরে অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকজন নারী উদ্যোক্তা তাদের অভিজ্ঞতা, নারী উদ্যোক্তাদের চ্যালেঞ্জ ও সুযোগ নিয়ে আলোচনা করেন। তারা হলেন ক্রাফট বাই আনিলা এর স্বত্বাধিকারী আনিলা তানজুম, হুর নুসরাত এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুসরাত আখতার লোবা, এলিগেন্ট ইভেন্ট সলিউশন এর স্বত্বাধিকারী রাজিয়া হক কনক, গ্রুপ ডট এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইয়্যেদা নাফিসা রেজা, পৌসি’জ এর স্বত্বাধিকারী মাহিয়া নিনান পৌসি, এবং রেনে বাংলাদেশের ম্যানেজিং পার্টনার সানজানা জামান।

রাজিব আহমেদ বলেন,  “ই-ক্যাবে প্রথম থেকেই আমরা নারী উদ্যোক্তা তৈরি এবং নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছি। যার কারণে অন্যান্য যেকোন অ্যাসোসিয়েশনের তুলনায় ই-ক্যাবে নারী উদ্যোক্তাদের সংখ্যা অনেক বেশি এবং তারা অনেক সক্রিয়। ” তিনি আরো বলেন যে নারী উদ্যোক্তাদের জন্যে অনেক ধরণের সুযোগ রয়েছে কিন্তু তাদেরকে সব সময়ে এক থাকতে হবে এবং একে অন্যকে সহযোগিতা করার মানসিকতা থাকতে হবে।

হোসনে আরা বেগম এনডিসি বলেন, “বাংলাদেশে আজ থেকে ৪০ বছর আগে মেয়েদের এত সুযোগ ছিলনা। আমরা অনেক সীমাবদ্ধতার মুখোমুখি হয়েছি এবং আমাদের এত সাহস ছিলনা পরিবারের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে কিছু করব। এখন সময় বদলেছে এবং মেয়েদের কাজের পরিসর এবং সুযোগ দুটোই বেড়েছে।” তিনি বলেন যে, হাইটেক পার্ক উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বর্তমানে ৭ টি জেলায় আইটি প্রশিক্ষণ প্রদান করছে এবং এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অনেক নারীকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে।

ই-ক্যাব সভাপতি শমী কায়সার বলেন, “ যেকোন ধরণের ব্যবসা খুবই চ্যালেঞ্জিং আর মেয়েদের বেলায় তা আরো জটিল কারণ তাদের প্রতিটা পদক্ষেপে নিজেকে প্রমাণ করতে হয়। এটা মেয়েদের সবচেয়ে বড় শক্তি কারণ এতে করে তারা নিজেদের অবস্থানকে আরো শক্তিশালী করে তুলতে পারে। বাংলাদেশে ই-কমার্সে অনেকে নারী উদ্যোক্তা আছে এবং অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্যেও তারা কাজ করে যাচ্ছেন। ই-ক্যাব এর সাথে যুক্ত হবার পিছনে আমার মূল উদ্দেশ্যই ছিল এসব নারী উদ্যোক্তাদের জন্যে কিছু করা।”

অনুষ্ঠানে সার্চ ইংলিশ গ্রুপের চারজন নারী সদস্য – সিন্থিয়া জান্নাতি, ফারজানা তামান্না,  জান্নাত কাদের, এবং মারজান খানম, ঢাকার পথ খাবারের উপরে তাদের নির্মিত ইউটিউব ভিডিওটি প্রদর্শন করেন এবং সবার সাথে তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

এরপরে অনুষ্ঠানের অতিথিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। পরে শমী কায়সার কেক কেটে ওমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম (ডব্লিউ ই)এর লোগো উন্মোচন করেন।

অনুষ্ঠানটি স্পন্সর করেছে কুরিয়ার সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান টিকটক, রেভারি, সিটি অনলাইন মার্ট, আর্টিস্টিক, নুসরাটেক, ব্রেকবাইট, ভিনটেজ, এবং কেকবেক।

মন্তব্য
Loading...